এখন পড়ছেন
খবর

শহীদদের রক্ত বৃথা যেতে পারে না : মাওলানা আহমাদুল্লাহ আশরাফ

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান ও হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলানা শাহ আহমাদুল্লাহ আশরাফ বলেছেন, ইসলাম জিন্দা হোতা হ্যায় হর কারবালা কি বাদ। আল্লাহ ও রাসূল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ভালোবাসায় যারা শাপলা চত্বরে জীবন দান করেছেন, সেই সব শহীদের রক্ত কখনো বৃথা যেতে পারে না।

গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা কামরাঙ্গীরচর মাদরাসায় শাপলা চত্বরে শহীদদের স্মরণে ও আহতদের সুস্থতা কামনা করে বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের আয়োজিত দোয়া সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী, সহকারী মহাসচিব মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, মাওলানা আবু জাফর কাসেমী, মাওলানা সালাহউদ্দীন জয়নাল, মাওলানা আবুল কাসেম কাসেমী, মাওলানা সুলতান মহিউদ্দীন ও আবদুল মান্নান ঢালী প্রমুখ।

মাওলানা আশরাফ বলেন, আমাদের আন্দোলন সরকার উৎখাত ও সরকার গঠনের জন্য নয়। হেফাজতের ১৩ দফার কোথাও সরকারের পতনের কথা নেই। নাস্তিকদের প্রতিরোধ এবং ৯০% মুসলমানের ঈমান রার আন্দোলনে সরকার নির্বিচারে অসংখ্য মানুষ হত্যা করে জাতির সামনে তার অবস্থান পরিষ্কার করেছে। এতেই প্রমাণ হয় এ সরকার ইসলামের দুশমনদের দ্বারা পরিচালিত সরকার।

তিনি পবিত্র কুরআন পোড়ানোর ঘটনায় সরকারকে দায়ী করে বলেন, যে কুরআন হাদিস রায় জীবন বিলিয়ে দিতে দ্বিধা করেন না, তারা কখনোই কুরআন হাদিসে অগ্নিসংযোগ করতে পারেন না। সত্যিকারে ভিডিও ফুটেজ দেখলে এর সাথে জড়িত কারা তা বেরিয়ে আসবে।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম: গতকাল বাদ জুমা পল্টনের দলীয় কার্যালয়ে ৫ মে হেফাজতের সমাবেশে শাহাদত বরণকারীদের রূহের মাগফেরাত ও আহতদের আরোগ্য কামনা করে আয়োজিত দোয়া মাহফিলে জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের নেতৃবৃন্দ বলেন, গত ৫ মে রাতের আঁধারে আওয়ামী পেটোয়া বাহিনী কর্তৃক নিরীহ-নিরপরাধ আলেম ওলামাদের ওপর পৈশাচিক হামলা ইতিহাসের কালো অধ্যায়গুলোকেও হার মানিয়েছে। আওয়ামী লীগ দ্বীনদার মুসলমানদের ওপর যে তাণ্ডব চালিয়েছে তাতে আল্লাহর আরশও কেঁপে উঠেছে। বিশ্ব মুসলিমের বুকে যে রক্তরণ হয়েছে তার প্রতিফল অবশ্যই সরকারকে পেতে হবে।

নেতৃবৃন্দ গতকাল আলেম ওলামাকে গরু গাধা ইত্যাদি আখ্যায়িত করে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী রাজিউদ্দীন আহমদের কটূক্তিকর বক্তব্যের সমালোচনা করে বলেন, আলেম ওলামারা এ দেশে ভেসে আসেনি। এ দেশের শিকড়ের সাথে আলেম ওলামার সম্পর্ক। মন্ত্রীর দেয়া বক্তৃতা চরম মূর্খতার শামিল আখ্যায়িত করে বলেন, জাকাত-ফেতরায় এ দেশের আলেম ওলামা চলেন না বরং আলেমদের আল্লাহই চালান, আল্লাহই চালাবেন, সেই আস্থা বিশ্বাস আমাদের আছে।

জমিয়তের প্রচার সম্পাদক ওয়ালী উল্লাহ আরমানের সভাপতিত্বে দোয়া মাহফিলে শরিক হন মুফতি রেদওয়ানুল বারী সিরাজী, মুফতি নাসির উদ্দীন খান, মুফতি শরীফুল ইসলাম, মুফতি ওমর ফারুক, মুফতি তোফায়েল গাজালি, মাওলানা সফিউল্লাহ মাসউদ, মুফতি সুহাইল, মুফতি বোরহান উদ্দীন, মুফতি আতাউর রহমান খান, মাওলানা জুবায়ের আহমদ প্রমুখ।

বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষক ফেডারেশন : বাংলাদেশ কওমি মাদরাসা শিক্ষক ফেডারেশনের আহ্বায়ক মাওলানা আবদুল মাজেদ আতহারী ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মাওলানা আবদুল হক চাঁদপুরী, সদস্যসচিব মুফতি কামরুল ইসলাম ভূঁইয়া এক বিবৃতিতে বলেছেন, সরকার নিরস্ত্র লাখ লাখ আলেম ওলামা মাদরাসার ছাত্র ও তৌহিদি জনতার ওপর যে নির্মম হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে তার নিন্দা ও ঘৃণা জানানোর ভাষা আমাদের নেই। তারা হেফাজতের মহাসচিব আল্লামা বাবুনগরীর মুক্তি দাবি করেন ও এ হত্যাযজ্ঞের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

Advertisements

আলোচনা

কোন মন্তব্য নেই এখনও

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

হেফাজতে ইসলামের খবর

https://banglargangai.wordpress.com/wp-admin/widgets.php#available-widgets

ফরহাদ মজহারের কলাম

Join 253 other followers