এখন পড়ছেন
খবর

নারীদের সম্মান ও অধিকার রক্ষার জন্য আন্দোলন: নেত্রকোনায় হেফাজত

hiনেত্রকোনায় শানে রেসালাত মহাসমাবেশে বক্তারা বলেছেন, হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন এ দেশের নারীদের ইজ্জত-আব্রু ও অধিকার রক্ষার আন্দোলন। হেফাজতের দাবির ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধে নারীদের মাঠে নামানোর অপচেষ্টা চলছে। শালীনতার মধ্য দিয়ে শিক্ষা, কর্মক্ষেত্রেসহ সব অবস্থায় নারীদের ন্যায্য অধিকারের পূর্ণ বাস্তবায়ন চায় হেফাজতে ইসলাম। কেননা একমাত্র ইসলাম ধর্মেই নারীদের অধিকারের কথা বলা হয়েছে যা অন্য কোথাও নেই।

গতকাল মঙ্গলবার নেত্রকোনার বারহাট্টা রোড তিন মাথা প্রাঙ্গণে জেলা হেফাজতে ইসলাম আয়োজিত মহাসমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন।

তারা বলেন, এখনো সময় আছে, হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবি মেনে নিন। নইলে দিল্লি-রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক রেখে মতায় টিকে থাকা যাবে না। ইসলামি গণজাগরণের ধাক্কায় শেষ পর্যন্ত পালানোর পথও খুঁজে পাবেন না। অপরাজনীতি করতে গিয়ে সাভারের রানা প্লাজায় শত শত নিরীহ নারী-পুরুষকে হত্যা করা হয়েছে। বিশ্বজিৎ নামে এক যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করেছে সরকার দলীয় ক্যাডাররা। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস সরকারের সেই পাণ্ডা রানা এখন পুলিশ হেফাজতে। বক্তারা আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন গর্তে পড়ার সময় হয়েছে। ইসলামি গণজাগরণে সরকারের মন্ত্রী, এমপি ও নেতাদের হৃদকম্প শুরু হয়েছে।

হেফাজতে ইসলামের জেলা আমির মুফতি তাহের কাসেমীর সভাপতিত্বে মহাসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর যুগ্ম আহ্বায়ক মুফতি তৈয়ব, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ, মাওলানা এহতেশামুল হক সারোয়ার, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, মাওলানা আনোয়ার শাহ। স্থানীয়দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা হেফাজতের যুগ্ম আহ্বায়ক মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম, আবু সাঈদ খান, মাওলানা আব্দুর রহমান প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন হাফেজ দেলোয়ার হোসেন।

পথে পথে বাধা হামলায় আহত অর্ধশতাধিক : মহাসমাবেশ ঠেকাতে সরকার দলীয় নেতাকর্মীরা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়েও তৌহিদি জনতাকে আটকাতে পারেনি। আগের দিন মুক্তিযোদ্ধা জনতার ব্যানারে একই স্থানে সমাবেশ আহ্বান করে শহরে ব্যাপক মাইকিং করে। গতকাল তারা তৌহিদি জনতার উপস্থিতি টের পেয়ে স্থান পরিবর্তন করে শহীদ মিনারে সমাবেশের আয়োজন হয়। কিন্তু লোক সমাগমের অভাবে শেষ পর্যন্ত তা সফল করতে পারেনি।

গতকাল সকালে রাস্তার মোড়ে মোড়ে লাঠিসোটা ও রামদা নিয়ে সরকার দলীয় ক্যাডাররা মহাসমাবেশে আগত জনতাকে ঠেকানোর চেষ্টা চালায়। মিছিল নিয়ে আসার পথে সকালে কুড়পাড়, জয়নগর, কাটলী, ইসলামপুর মোড়, বাস টার্মিনালসহ বেশ কয়েক জায়গায় হামলা চালালে অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হন। তাদের অনেককেই সদর হাসপাতাল ও বিভিন্ন কিনিকে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

হামলার খবর পেয়ে সমাবেশ স্থল থেকে কয়েক শ’ তৌহিদি জনতা কুড়পাড়ের দিকে স্লোগান দিয়ে যাওয়ার পথে শহীদ মিনারে অবস্থানরত সরকারদলীয় লোকজন সরে পড়ে। মোক্তারপাড়া ব্রিজ অতিক্রম করার পর সরকারদলীয়রা মিছিলের ওপর হামলা চালায়। এর কিছুক্ষণ পর যুব ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ছোট বাজারের জেলা বিএনপি কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। সংবাদ পেয়ে আরো কয়েক শ’ তৌহিাদ জনতা যোগ দেয়ায় আক্রমণকারীরা পালিয়ে যায়। গত চার বছরে বিরোধী দলের কোনো নেতাকর্মী এলাকায় মিছিল বের করতে না পারলেও গতকাল হেফাজতের শত শত তৌহিদি জনতা সরকারি দলের নেতাদের প্রতিরোধ করে মিছিল করে সফল সমাবেশ করে।

Advertisements

আলোচনা

কোন মন্তব্য নেই এখনও

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

হেফাজতে ইসলামের খবর

https://banglargangai.wordpress.com/wp-admin/widgets.php#available-widgets

ফরহাদ মজহারের কলাম

Join 253 other followers