এখন পড়ছেন
খবর

গণঅনশন, মানব বন্ধন ও প্রকাশনা বন্ধ

Press-Club-bg220130415010504দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের মুক্তি ও আমার দেশে পত্রিকার প্রেস খুলে দেওয়ার দাবিতে সাংবাদিকদের `গণঅনশন` কর্মসূচি পালিত হয়েছে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত। একই দাবিতে অনশন করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিএমইউজে)। মানব বন্ধন করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

সংহতি প্রকাশ করে গণঅনশনে যোগ দেয় মুক্তমনা ব্লগারদের সংগঠন কমিউনিটি ব্লগারস ফোরাম (সিবিএফ), মাহমুদুর রহমান মুক্তি আন্দোলন, মাহমুদুর রহমান মুক্তি পরিষদ, বাংলাদেশ অনলাইন জার্নালিস্টস এসোসিয়েশন, তরুণ প্রজন্ম, নারী সাংবাদিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন সংগঠন।

একদিকে পত্রিকাটির সাংবাদিক ও আইনজীবীরা জানান, সরকার অবৈধভাবে আমার দেশ ছাপাখানায় সিলগালা করেছে এবং সর্বশেষ আল ফালাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে কর্মচারী গ্রেপ্তার করে সরকার তা ছাপানো বন্ধ করেছে।

গণঅনশন: সাংবাদিকদের এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে প্রেসক্লাবের সামনে এক অংশের রাস্তা বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) একাংশের সাংবাদিক নেতারা সেখানে বক্তব্য রাখছেন।

মাহমুদুর রহমানের মুক্তির দাবিতে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন আমার দেশ ইউনিট এ গণঅনশনের আয়োজন করেছে।

গণঅনশনে বক্তব্য রাখবেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, মহাসচিব শওকত মাহমুদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) একাংশের সভাপতি আবদুস শহীদ, সাধারণ সম্পাদক মুহম্মদ বাকের হোসাইন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, আইইবির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মিয়া মো. কাইয়ুম, রিয়াজুল ইসলাম রিজু, জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাদের গণি চৌধুরী, সংগ্রামের প্রধান প্রতিবেদক শহীদুল ইসলাম, আমার দেশ ইউনিট চিফ বাছির জামালসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ।

প্রসঙ্গত, ধর্মীয় উস্কানি ও স্কাইপে কেলেঙ্কারি প্রকাশের অভিযোগে গত ১২ এপ্রিল পত্রিকাটির কার্যালয় থেকে মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।এর পর তেজগাঁও এ পত্রিকাটির প্রেস সিলগালা করে দেয় পুলিশ।

এর পর থেকে তার মুক্তির দাবিতে বিএনপি-জামায়াতপন্থি সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নসহ (ডিইউজে) কয়েকটি সংগঠন প্রতিবাদ ও সমাবেশ করে আসছে।

প্রকাশনা বন্ধ: দৈনিক আমার দেশের সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার ও ছাপাখানা সিলগালা করে দেয়ার পর আইন অনুসারে ঢাকা জেলা প্রশাসনকে জানিয়ে অন্য একটি প্রেস থেকে পত্রিকাটি ছাপার উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল- সেখান থেকেও ছাপা বন্ধ করে দিয়েছে সরকার।

সোমবার ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানিয়েছে পত্রিকাটির কর্তৃপক্ষ।

তবে সাময়িকভাবে বন্ধ থাকলেও খুব শিগগিরই আমার দেশ আবার প্রকাশ করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তারা।

পত্রিকাটির আইনজীবী সালেহ উদ্দিন বলেন, আমার দেশ প্রকাশ করতে আইনগত কোনো বাধা নেই। এরপরেও সরকার জোর করে ছাপাখানা সিলগালা ও আল ফালাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে পত্রিকার ছাপা বন্ধ করেছে। এর বিরুদ্ধে আইনগতভাবে লড়াই করে অচিরেই আমার দেশ প্রকাশ করা হবে।

তিনি জানান, প্রেস ও পাবলিকেশন্স’ এর ৪/২ (বি) ও ১০ নং ধারা অনুযায়ী ঢাকা জেলা প্রশাসককে অন্য প্রেস থেকে পত্রিকা ছাপার বিষয়টি অবহিত করা হয়। যার রিসিভ কপি আমর দেশ কর্তৃপক্ষের কাছে আছে।

এক প্রশ্নের জবাবে সালেহ উদ্দিন বলেন, জেলা প্রশাসকের বক্তব্য আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। প্রেস এ্যান্ড পাবলিকেশন্স আইন-১৯৭৩ অনুযায়ি নির্দিষ্ট প্রেসে পত্রিকা ছাপতে না পারলে অন্য কোনো প্রেসে পত্রিকা ছাপার ২৪ ঘন্টার মধ্যে জেলা প্রশাসককে জানাতে হবে। আমার দেশ কর্তৃপক্ষ ২৪ ঘন্টার কম সময়ে জেলা প্রশাসককে লিখিতভাবে জানিয়েছে, যার কপি আমাদের কাছে রয়েছে। জেলা প্রশাসক বিভিন্ন গণমাধ্যমে দেয়া বক্তব্যে বিষয়টি গত ১২ এপ্রিলই স্বীকার করেছেন। এরপরও জেলা প্রশাসক বলছেন, আমার দেশ কর্তৃপক্ষ পত্রিকা অন্য প্রেস থেকে ছাপার ব্যাপারে কোনো অনুমতি নেয়নি।

আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, আইনে অনুমতি নেয়ার বিষয় নেই। বরং শুধু অবহিত করার বিধান রয়েছে, যা আমার দেশ কর্তৃপক্ষ করেছে। উপরন্ত আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ি আমার দেশ প্রকাশিত হওয়ার কারণে এর প্রকাশনা বাধাগ্রস্ত করা আদালত অবমাননার শামিল। এ বিষয়ে যথাযথ আইনী পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

‘কিন্তু গত ১২ ও ১৩ এপ্রিল পত্রিকা প্রকাশ হলেও ১৪ এপ্রিল পত্রিকার প্রকাশের সময় ১ এপ্রিল রাত ১১টার দিকে পুলিশ আল-ফালাহ অভিযান চালিয়ে প্রিন্টিং প্রেস তল্লাশি চালিয়ে মুদ্রণ কপি জব্দ করে। সেখানে কর্মরত ১৯ জন সংবাদকর্মীকে গ্রেপ্তার করে’ যোগ করেন সালেহ উদ্দিন।

তিনি জানান, আমার দেশ যে দুইদিন বের হয়েছিল পত্রিকার নিচে লেখা ছিল কোথায় থেকে পত্রিকার ছাপা হয়েছে।

তিনি বলেন, পত্রিকাটি ছাপা বন্ধ করায় পত্রিকা অফিসের প্রায় তিনশ’ সাংবাদিক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ঢাকার বাইরে কর্মরত আরও প্রায় পাঁচশ’ সাংবাদিক ও তাদের পরিবার অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছেন।

আমার দেশের নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ জানান, মাহমুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার করার পর প্রেস তল্লাশি ও এক পর্যায়ে সেখানে তালাবন্ধ করে দেয়া হয়।

তিনি জানান, ১৯৭৩ সাল প্রেস অ্যান্ড পাবলিকেন্স অ্যাক্ট অনুযায়ী আল-ফালাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে অস্থায়ীভাবে আমার দেশ কর্তৃপক্ষ বিকল্প ব্যবস্থায় পত্রিকা প্রকাশের উদ্যোগ নেয়।

আবদাল আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, সোমবারও সাদা পোশাকধারী পুলিশ আমার দেশ পত্রিকার কার্যালয়ের অভ্যর্থনা কক্ষে সাংবাদিকদের প্রবেশ নানা হয়রানি করেছে।

‘আমার দেশ পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ বা ডিক্লারেশন বাতিল না করলেও বেআইনিভাবে ছাপাখানা বন্ধসহ নানাভাবে পত্রিকা প্রকাশে হয়রানি করছে’ যোগ করেন তিনি।

আমার দেশ কি বন্ধ হয়ে গেল- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে পত্রিকাটির আইনজীবী সালেহ উদ্দিন জানান, ‘আমার দেশ প্রকাশ বন্ধ করতে এখনও আদালত থেকে আমরা কোনো লিখিত নোটিশ পাইনি।’

তিনি বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে সত্য লেখায় পত্রিকাটিকে রোষানলে পড়তে হয়েছে মাত্র। যেহেতু পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার ও পত্রিকাটি হয়রানির শিকার হচ্ছে, এতে পত্রিকাটি প্রকাশে কিছু দিন দেরি হতে পারে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পত্রিকাটির সাহিত্য সম্পাদক কবি হাসান হাফিজ, নিউজ এডিটর জাহেদ চৌধুরী, সিটি এডিটর এম আবদুল্লাহ ও আমার দেশের পক্ষে আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার।

Advertisements

আলোচনা

কোন মন্তব্য নেই এখনও

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

হেফাজতে ইসলামের খবর

https://banglargangai.wordpress.com/wp-admin/widgets.php#available-widgets

ফরহাদ মজহারের কলাম

Join 253 other followers